বিশ্ব সেরা সুন্দরীর শিরোপা পেল এই খুদে কন্যা, জানুন এই খুদেরর আসল পরিচয়

0
200

নেট দুনিয়ায় মাধ্যমে কত কিছুইনা ভাইরাল হয়। হাতে একটা মুঠোফোন থাকলেই কয়েক নিমেষেই ভিডিও গুলো পৌছে যায় দেশকাল সীমানার বাইরে। করোনা ভাইরাসের জন্য যখন প্রত্যেকটি মানুষের জীবন বন্ধ ঘরের মধ্যে কার্যত গৃহবন্দি অবস্থায় কাটছে।

তখন মানুষের জীবনের সাথে সাথে মনের অবস্থা ক্রমশ ক্ষতির দিকে যাচ্ছে। আর এই রকম পরিস্থিতিতে ইউটিউব এর এই একেকটি ভিডিও মানুষের জন্য অক্সিজেন বহন করে নিয়ে আসে। কখনো কাউকে আনন্দ দিচ্ছে কখনো আবার কাউকে উৎসাহিত করছে তাদের কেউ নতুন করে কিছু শুরু করার জন্য।

আগেকার দিনে নিজের প্রতিভা প্রকাশ করার জন্য টেলিভিশন বা রেডিও একটা অডিশনের ওপর নির্ভর করত। বাস্তব চিত্রটা আগেকার দিনে তেমনই ছিল। কিন্তু বর্তমানে চিত্রটা অনেকটাই বদলেছে। যুগ এগিয়েছে সামনের দিকে। তারকারা যে সবসময় টাইমলাইন জুড়ে থাকতে বেশ পছন্দ করেন,

তা ভালো ভাবেই বোঝা যায়। সেটা টেলিভিশন জগতের হোক কিংবা বলিউড, টলিউডের অভিনেতা অভিনেত্রীরা। তাই তো মাঝে মধ্যেই নেট দুনিয়ায় উঠে আসে তাদের সমস্ত ভিডিও,ছবি,যা অনায়াসে দর্শকদের মন কেড়ে নেয়।তারা সেগুলো বেশ ভালোই উপভোগ করেন।

হাসিমাখা মুখ কার না ভালো লাগে? একটি সুন্দর হাসি সব দুঃখ ভুলতে সাহায্য করতে পারে। কোকড়ানো চুল, নীল চোখের মেয়েটি হাসলে মনে হয় মুক্তা ঝরে পড়ছে। যার রূপের জাদুতে মুগ্ধ হয়েছে সারা বিশ্ববাসী। যার রুপ বলিউডের তাবড় তাবড় অভিনেত্রীদের ও হার মানায়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট হওয়ামাত্রই ছবি ভাইরাল। এই কিউট মেয়েটির নাম অনাহিতা হাশমাজাদেহ। ১০ই জানুয়ারী, ২০১৬ সালে জন্মগ্রহণ করা অনাহিতা ইরানের ইসফাহান শহরের বাসিন্দা। ২০১৯ সালে, অনাহিতা হাশমাজাদেহের একটি ভিডিও ক্লিপ পোস্ট করা হয়েছিল।

এই ভিডিওতে অনাহিতাকে তার মিষ্টি হাসিতে দেখা গিয়েছিল। ভিডিওটির ক্যাপশনে জামিয়াং সেরিং লিখেছেন, ‘আজ আমি ইন্টারনেটে সবচেয়ে সুন্দর জিনিস দেখলাম’। ভিডিওটি পোস্ট হওয়া মাত্রই ভাইরাল হয়ে পড়ে লক্ষ লক্ষ মানুষ ভিডিওটি পছন্দ করে এবং শেয়ার করে‌।

এরপরে হঠাৎই তার ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট হ্যাক হয়, শিশুটি ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট তার মা পরিচালনা করত। সেখান থেকে তার সমস্ত ছবি আপলোড হত এরপরে শিশুটির মা আরো একটি ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট বানান সেখান থেকেই পোস্ট হত ছবি এবং ভিডিও। মায়ের সাপোর্টে বর্তমানে সে একজন বড় মডেল হয়ে উঠেছে।

বয়সে ছোট হলেও ছোট বয়সেই মডেলিং জগতে ঢুকে পড়েছে অনাহিতা।এরপর করোনা ভাইরাস বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ার পর এই ছোট্ট শিশুটি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিল বলে শোনা গিয়েছিল। কিন্তু তার মা পরবর্তীকালে জানায় যে এই খবরটি পুরোপুরি ভুয়ো।বর্তমানে অনাহিত একজন শিশু মডেল।

ইনস্টাগ্রামে তার অনেক ছবি এবং ভিডিও রয়েছে যা পেশাদার ফটোগ্রাফাররা ক্লিক করেছেন। অনাহিতা হাশমাজাদেহ এখনও শিশু, তাই তার মা তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করেন এবং এতে অনাহিতার সুন্দর ছবি পোস্ট করেন। এখনো সকলের মনেই সে একই জায়গা করে রয়েছে অনাহিতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here