Breaking News

প্রাণ বাঁচিয়েছেন বনদপ্তরের অফিসার, পা জড়িয়ে ধরে কৃতজ্ঞতা জানালেন ছোট্ট হাতি, রইলো ভাইরাল ভিডিও

বিজ্ঞানী ভিনটন জি কার্ফকে ইন্টারনেটের জনক বা আবিষ্কারক বলা হয়। ইন্টারনেট আবিষ্কারের পর এটির সবথেকে যুগান্তকারী অবদান হল সোশ্যাল মিডিয়া। এই আধুনিক যুগে ঘরে বসে বিনোদনের মূলমন্ত্র হয়ে উঠেছে এই সোশ্যাল মিডিয়া। সোশ্যাল মিডিয়ার আরো দুটি নাম আছে যথা নেট দুনিয়া এবং নেট মাধ্যম।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা ঘরে বসেই সিনেমা থেকে শুরু করে খেলাধুলা নিমিষেই উপভোগ করতে পারি। এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার পূর্বাভাস বা বন্যা, ভারী বৃষ্টিপাত সম্পর্কিত তথ্য নিমিষেই জেনে যেতে পারি।

এছাড়া এই নেট দুনিয়া আছে বলেই কোনো প্রতিভা একেবারে শুরুতেই শেষ হয়ে যায় না। প্রতিভাবান ব্যক্তিরা এই নেট দুনিয়াতে নিজেদের প্রতিভার ভিডিও আপলোড করেন এবং সেই ভিডিওটি নেটিজেনদের মধ্যে ভাইরাল হলে ওই প্রতিভাবান ব্যক্তি রাতারাতি স্টার হয়ে যান।

এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেই আমরা রানু মণ্ডল, চাঁদমনি হেমব্রম ও বিপাশা দাসের মত প্রতিভাদের আমাদের মাঝে পেয়েছি। এছাড়া বর্তমানে রানু মণ্ডলের জীবন কাহিনী সম্পর্কে একটি বায়োপিকও তৈরি হচ্ছে। এছাড়াও এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বহু জনপ্রিয় তারকাদের দৈনন্দিন জীবনের কার্যকলাপ সম্পর্কে জানা যায়।

এছাড়াও বর্তমানে এই আধুনিকতার শিখরে দাড়িয়ে ছাত্র ছাত্রীরা এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বিভিন্ন বিষয়ক জ্ঞান আহরণ করতে পারে। এছাড়াও এই নেট দুনিয়ার মাধ্যমে প্রকৃতি, পশু পাখি, পৃথিবী সম্পর্কিত বহু রহস্যময়ী তথ্য জানা যায়।

এক কথায় বলতে গেলে এই যুগে আমরা সোশ্যাল মিডিয়া বা নেট দুনিয়া বা নেট মাধ্যম ছাড়া অচল। বহু পশুপাখির বিভিন্ন মুহূর্তের ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা যায় এই সোশ্যাল মিডিয়ায়। ইদানিং একটি হাতির ছানার ভিডিও ভাইরাল হচ্ছে এই সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ভিডিওটিতে দৃশ্যমান ঘটনাটি সম্পর্কে আসুন বিস্তারিত জানা যাক। শুধু মানুষই নয়, পশুরাও সাহায্যের বদলে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করতে জানে। সম্প্রীতি এই রকমই একটি ভিডিও ভাইরাল হচ্ছে এই সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে এক বনদফতরের অফিসার একটি হাতির ছানার প্রান বাঁচান।

অপর মুহূর্তেই ওই হাতির ছানাটি ওই অফিসারের পা শুঁড় দিয়ে জড়িয়ে ধরে তাকে কৃতজ্ঞতা জানায়। এই ভিডিওটি নিমিষে ভাইরাল হয় এই সোশ্যাল মিডিয়ায়। সোশ্যাল মিডিয়ার দর্শকদের এই ভিডিওটি খুবই ভালো লেগেছে তা সোশ্যাল মিডিয়ার দর্শকরা কমেন্ট করে জানিয়েছেন।

ছোট হাতি তার মা এবং দলবদলের থেকে আলাদা হয়ে গিয়েছিল, সেই অবস্থাতেই এক বনদফতরের কর্মী এই হাতির ছানাকে উদ্ধার করে। একাকীত্ব কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই হাতির ছানা বেশ চনমনে হয়ে উঠে। সেই হাতিকে খুব তাড়াতাড়ি দলে ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

কারণ এই হাতির গায়ে যদি মানুষের গন্ধ বেশি দিন থাকে, তাহলে তাকে দলে আর ফিরিয়ে নেওয়া হবেনা এমনটাই হাতিদের চরিত্র। আপনিও এই ভিডিওটি দেখতে পারেন এবং উপভোগ করতে পারেন। এই ভিডিওটি EastMojo ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হয়েছে।

এই ভিডিওটিকে বহু মানুষজন দেখেছেন এবং উপভোগ করেছেন। এই ভিডিওটিকে বহু মানুষজন লাইক করেছেন এবং বহু মানুষজন কমেন্ট করে তাদের মতামত জানিয়েছেন।

Check Also

আবারো শুরু হতে চলেছে বৃষ্টির তান্ডব, সতর্ক বার্তা আবহাওয়া দপ্তরের

আরও একবার দুর্যোগের আশঙ্কা। জোড়া নিম্নচাপ পরিণত হতে পারে সাইক্লোনে। রবিবার থেকে বৃষ্টি শুরু। চলবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *