পালিয়ে বিয়ে করে শশুর বাড়ী যাওয়ার পর সালার হাতে তুমুল মার খেলো নতুন জামাই, তুমুলে ভাইরাল ভিডিও

0
18

গতবছরের করনা আতঙ্কে স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল পুরো পৃথিবী। দীর্ঘকালীন একবছরের লকডাউন এর ফলে পৃথিবীতে নেমে এসেছিল নীরবতা। দিকে দিকে মৃত্যুর হাহাকার অর্থনৈতিক মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিল পৃথিবীর মানুষ জন।

এই সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য সারা পৃথিবীতে ভারসাম্য বজায় থেকে ছিল। Work-from-home এর মাধ্যমে পৃথিবীতে সব মানুষ নিজের নিজের কাজ বজায় রেখেছিলেন। এমনকি স্কুল কলেজে পড়াশোনাও অনলাইন ক্লাস এর মাধ্যমেই হচ্ছিল।

এক কথায় বলতে গেলে অচল পৃথিবী কে সচল রেখে ছিলো একমাত্র সোশ্যাল মিডিয়া।বর্তমানে আমাদের জীবনের সবটুকু জুড়ে আছে সোশ্যাল মিডিয়া। জীবনের সুখ-দুঃখ হাসি কান্না সব জায়গাতেই সোশ্যাল মিডিয়ার ভূমিকা অনিবার্য।

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে নানা রকম ভিডিও ভাইরাল হয় প্রতিদিন। সেখানে নাচ-গান প্রভৃতি অ্যাক্টিভিটির সাথে মার্শাল আর্ট এছাড়াও নানা রকম অদ্ভুত ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতে দেখি আমরা।বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে বহু মানুষ তাদের প্রতিভাকে বিশ্বের সামনে প্রদর্শন করতে পারছেন।

দেশের কোনায় কোনায় এমন অনেক মানুষ রয়েছেন, যাদের প্রতিভা থাকলেও নেই সুযোগ। তবে সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন অ্যাপসের মাধ্যমে তারা নানারকমভাবে বিশ্বের সামনে নিজেদের প্রতিভা প্রদর্শন করতে পারছেন।

প্রতিভা প্রদর্শনের দৌড়ে কিশোর-কিশোরী যুবক-যুবতীদের সাথে বয়স্করাও পিছিয়ে নেই।সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছিল সত্তরোর্ধ্ব বৃদ্ধার শাস্ত্রীয় সংগীতে নৃত্য পরিবেশনা যা সবাইকে করেছিল মুগ্ধ।বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন একটি নতুন ট্রেন্ড “প্রাঙ্ক ভিডিও”,

এই ট্রেন্ডে মানুষকে বোকা বানিয়ে তার ভিডিও সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে তাঁর সত্যিই আমাদের অত্যন্ত আনন্দদায়ক। তবে কিছু কিছু জায়গায় মজা করতে গিয়ে তা সাংঘাতিক কোন ঘটনায় মোড় নিতে পারে।

সম্প্রতি ভাইরাল একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একটি ছেলে এবং একটি মেয়ে, তোরা দুজনেই অত্যন্ত কম বয়সেই বাবা মার অমতে বিয়ে করে দাদার সামনে গিয়ে তাদের জানায়। এর পরেই শুরু হয় দুর্দান্ত ঘটনা। সকলের সামনেই দাদা ছেলেটিকে মারতে থাকে। এমনকি পেটাতে পেটাতে তাকে রাস্তাতে ফেলে দেয়।

ছেলেটিও মেয়েটিকে বাঁচাতে পাড়া-প্রতিবেশি ও তাদের বন্ধুরা এগিয়ে এলেও দাদা ক্ষান্ত হননি। দাদার বক্তব্য ছিল এই যে তিনি তার প্রাণপ্রিয় বোনকে এইভাবে কোন অচেনা ছেলের হাতে তুলে দেবেন না। বোনের সুরক্ষার জন্য দাদা সব কিছু করতে রাজি। পরিস্থিতি চরম পর্যায়ে পৌঁছে যাবার পর তারা জানায় এটি একটি প্রাঙ্ক ছিল।

এটি শুনে পরিবারের সবাই হেসে ফেলে। সবকিছু শেষ পর্যন্ত ভালোভাবে মিটে যায়। বিশেষ করে এই ভিডিওতে দাদার ভালোবাসা অত্যন্ত ভালোভাবে ফুটে উঠেছে। দাদা যে কতখানি বোনকে ভালোবাসেন তা ফুটে উঠেছে এই ভিডিওটিতে, তার ভালোবাসাকে জানাই কুর্নিশ।

ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে “প্রাঙ্ক অয়ন” নামে একটি অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেল থেকে। ভিডিওটি এরমধ্যেই হাজার হাজার মানুষ ভাইরাল করে দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়া। ভিডিওটি দেখে একদম সত্যি মনে হলেও পরে সম্পূর্ণ দেখে দর্শকরা হেসে ফেলেন। নানারকম মন্তব্যে ভরে উঠেছে কমেন্ট বক্স।

এই ধরনের ভিডিও সত্যিই একেবারে নতুন রকম। তবে এই ধরনের ভিডিও অভিনেতা-অভিনেত্রীরা সত্যি খুব ভালো কাজ করেছেন। কোনো তালিম ছাড়া এত কম বয়সে তাদের প্রতিভা মুগ্ধ করে দিয়েছে সবাইকে।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে এভাবেই বহু অনামী প্রতিভাবান শিল্পী তাদের প্রতিভা বিশ্বের সামনে পরিবেশন করতে পারছেন, তারা তাদের যোগ্য সম্মান পাচ্ছেন।সোশ্যাল মিডিয়া এভাবেই পৃথিবীর কোনায় কোনায় থাকা প্রতিভাবান ব্যক্তিদের সকলের সামনে তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ার এই প্রচেষ্টাকে জানাই কুর্নিশ।

শুধু তাই নয় এছাড়া মজার হাসির ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা যায় প্রায় সময়। সোশ্যাল মিডিয়া জড়িয়ে আছে আমাদের জীবনের সব জায়গায়। সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের অজানাকে জানতে সাহায্য করে। সোশ্যাল মিডিয়াকে কুর্নিশ জানাই তার এই কাজের জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here