Breaking News

হিমেশ ফ্ল্যাট ও গাড়ি দেবেন বলেছিলেন, গায়কের দেওয়া প্রতিশ্রুতি দিয়েও মুখ খুললেন রানু মন্ডল

বর্তমানে বিনোদের আরেক নাম সোশ্যাল মিডিয়া। সোশ্যাল মিডিয়াকে আমরা আরো দুটি নামে চিনি যথা নেট মাধ্যম এবং নেট দুনিয়া। বর্তমানে এই সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব বিস্তার করে। সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়া আমার বর্তমান জীবনে একেবারেই অচল।

সোশ্যাল মিডিয়া বা নেট দুনিয়ার মাধ্যমেই আমরা বর্তমানে খেলাধুলা থেকে শুরু করে সিনেমা পর্যন্ত সকল মনোরঞ্জন মূলক বিষয়গুলি নিমিষে উপভোগ করতে পারি। এমনকি বিভিন্ন প্রাকৃতিক খবরাখবর নিমিষেই জেনে যেতে পারি এই নেট মাধ্যমের ফলে।

এক কথায় বলতে গেলে বিজ্ঞানের শ্রেষ্ঠ অবদান গুলির মধ্যে অন্যতম এই সোশ্যাল মিডিয়া। আজ আমরা কথা বলবো রানাঘাটের রানু মন্ডলকে নিয়ে। গত তিন বছর ধরে রাণু মন্ডলের জীবন যেন রোলার কোস্টার। রাণাঘাট স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে বসে গান গেয়ে ভিক্ষা করতেন রাণু।

অতীন্দ্র প্রতিদিন ওই প্ল্যাটফর্ম দিয়ে যাতায়াত করতেন। তিনিই মোবাইলে রাণুর গানের ভিডিও তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করলে তা ভাইরাল হয়ে যায় নেটদুনিয়ায়। এরপর হিমেশ রেশমিয়ার কাছ থেকে বলিউডে প্লে-ব‍্যাক করার ডাক আসে রাণুর কাছে।

নিমেষেই হিট হয়েছিল তাঁর কন্ঠে ‘তেরি মেরি কাহানি’। কিন্তু তাঁর কিছু ভিডিও আবারও ভাইরাল হল। তবে এবার তা নেতিবাচক। সেখানে দেখা যাচ্ছে, রাণুকে একজন মহিলা স্পর্শ করলে তিনি বলছেন, তাঁকে স্পর্শ না করতে। এইরকম বিচ্ছিন্ন কিছু ঘ-‘ট-‘না তলিয়ে না ভেবেই রাণুকে দেওয়া হল অহঙ্কারীর তকমা।

অপরদিকে নেমে এল করোনা অতিমারীর থাবা। রাণু ফিরে এলেন রাণাঘাটে তাঁর ভাঙা বাড়িতে। করোনা অতিমারীর সময় তিনিও গরিব মানুষকে যথাসাধ্য ত্রাণ দিয়েছেন। তা কিন্তু ভাইরাল হল না। ইদানিং প্রায়ই ইউটিউবাররা তাঁর বাড়িতে গিয়ে তাঁকে রান্না করে খাওয়ান বা শুকনো খাবার দিয়ে আসেন।

বলিউডে তৈরি হচ্ছে তাঁর বায়োপিক। ‘মিস রাণু মারিয়া’-র চরিত্রে অভিনয় করছেন ইশিকা দে। রাণু তাঁকে জড়িয়ে ধরে কেঁদেছিলেন। তিনি বলেছিলেন তাঁর জীবনের অনেক অজানা ঘ–‘ট-‘না যা এবার উঠে আসবে বড় পর্দায়। সম্প্রতি জনপ্রিয় ইউটিউবার তোতন ঘোষ রাণুর সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন।

কথা প্রসঙ্গে উঠেছিল হিমেশের কথা। রাণু জানিয়েছেন, হিমেশ এখনও তাঁকে মুম্বই আসতে বলেন। এমনকি হিমেশ বলেছিলেন, তিনি রাণুকে একটি ফ্ল্যাট কিনে দেবেন। কারণ মুম্বইয়ে রেকর্ডিং করতে গেলে দু-তিন দিন থাকতে হয়। তারপরেই রাণুকে রাণাঘাটে ফিরে আসতে হয়।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Danish Malik (@danish_malik37)

এইভাবে একবার যাওয়া-আসার ফলে রাণুর অসুবিধা হয়। ফলে হিমেশ তাঁকে ফ্ল্যাট দেবেন বলেছিলেন যাতে ওখানে থেকে রাণু কাজ করতে পারেন। এমনকি তাঁকে গাড়িও দেবেন বলেছিলেন হিমেশ। কিন্তু সবকিছু এখন কেমন যেন ধূসর। সকলেই যেন নিজের সুবিধার্থে ব্যবহার করেছেন রাণুকে।

অবিশ্বাস্য রকম সুর তাঁর গলায়। তবু জুটেছে প্রত্যাখ্যান, ‘পাগলী’ তকমা। কেউ জানতে চাননি, রাণুর জীবনের কথা। তাই আজ রাণু ভাঙা বাড়িতেই নিজেকে ভালো রাখার চেষ্টা করেন। নিত্যসঙ্গী তাঁর বাইবেল। তিনি জানেন, ঈশ্বর আছেন এবং তার ঈশ্বরের প্রতি অটুট বিশ্বাস আছে।

Check Also

কলকাতা স্টেশনে এক্কেবারে সাধারণ পোশাকে হাজির হলেন শাহরুখ খান, ছবি দেখে হুলুস্থূল নেটদুনিয়ায়

বর্তমানে বিনোদের আরেক নাম সোশ্যাল মিডিয়া। সোশ্যাল মিডিয়াকে আমরা আরো দুটি নামে চিনি যথা নেট …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *