‘কভি আলবিদা না কহেনা’ মৃত্যুর কিছুদিন আগে বাপ্পি লাহিড়ীকে জড়িয়ে ধরে বলেছিলেন সালমান খান, ভাইরাল ভিডিও

0
206

করোনা মহামারীর সময় যখন সারা দেশজুড়ে লকডাউন চলছিল সেই সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ার চাহিদা এবং গুরুত্ব দুটোই বেড়ে যায়। গৃহবন্দী মানুষ তখন নিজেকে ব্যস্ত রাখতে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন কার্যকলাপ করে পোস্ট করতে শুরু করে। নিমেষের মধ্যে সেই সকল পোস্ট ভাইরাল হয়ে গিয়ে বেশ কিছু ইনকাম শুরু হয়।

বর্তমান এই যুগে সবার হাতেহাতে বিনোদন বলতে আমাদের মাথায় একটাই আধুনিক প্ল্যাটফর্মের কথা মনে পড়ে সেটি হল সোশ্যাল মিডিয়া। হ্যা এই সোশ্যাল মিডিয়াই এখন আমাদের বিনোদন খেলাধুলা, গানবাজনা, সিনেমা, খবরাখবর প্রভৃতি আরও অনেক কিছু উপভোগ করার বিপুল ব্যাবহৃত এবং সহজ মাধ্যম হয়ে উঠেছে।

ছোটো থেকে বড়ো প্রায় সবার হাতেই এখন এই মাধ্যমটি পৌঁছে গেছে।আধুনিক সমাজের বহু তরুণতরুণীর বহু প্রতিভা, খেলাধুলা এই মাধ্যমের মাধ্যমে সবার হাতেহাতে পৌঁছে গেছে এবং ফুটে উঠেছে। আধুনিক সমাজে প্রায় সবাই বিভিন্ন তথ্য, জ্ঞান, শিক্ষা, প্রযুক্তি গ্রহণ করতে এই মাধ্যমের উপর বিপুল ভাবে সক্রিয় বলা যেতে পারে।


বর্তমানে আধুনিকতার শিখরে এসে সব থেকে দ্রুত সাফল্য পাবার চাবিকাঠি হল এই সোশ্যাল মিডিয়া। প্রায় অনেকেই নিজের প্রতি।ভা তুলে ধরে রাতারাতি এক সাফল্যের শিখরে পৌঁছে স্টার হয়েছেন, হয়েছেন বহু মানুষের কাছে অনুপ্রেরণা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে বিরল একটি ভিডিও। যেখানে দেখা যাচ্ছে, রিয়েলিটি শোর মঞ্চে উপস্থিত হয়েছেন বাপ্পি লাহিড়ী এবং সলমান খান। সলমান খান বাপ্পি লাহিড়ীর গলা জড়িয়ে গান গাইছেন, ‘কাভি আলবিদা না কাহেনা’। তিনি হয়ত মজার ছলেই করেছেন, অন্তত ভিডিওটি দেখে সেটাই বোঝা যাচ্ছে, কিন্তু বাপ্পিদা সবাইকে ছেড়ে নীরবে চলে গেলেন।

এক মাস ধরে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তারপরে বাড়ি চলে গিয়েছিলেন, তারপর একদিন পরেই আবার শরীর অসুস্থ হয়ে যায়, আর তার পরেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বাপ্পি লাহিড়ী।একজন সুরকার, কম্পোজার, গায়ক তার মধ্যে অসাধারণ একটি ভার্সেটাইল ক্ষমতা ছিল। ‘ডিসকো ডানসার’ থেকে শুরু করে নানান রকম রোমান্টিক গান, দুঃখের গান, অভিমানের গান তিনি যে কোনো জায়গাতেই নিজের কেরামতি দেখিয়েছিলেন। সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন বাপ্পি লাহিড়ী।

প্রথমে কোকিলকন্ঠী লতা মঙ্গেশকার তারপর এক সপ্তাহ পরেই গীতশ্রী সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় এবং পরের দিনে চলে যান বাপ্পি লাহিড়ী। মর্তলোক যেন একেবারে বেসুরো হয়ে যায়। বাপ্পি লাহিড়ী মারা যাওয়ার পরই এই ছোট ছোট ভিডিওগুলি পৌঁছে গেছে। প্রত্যেকের কাছে মারা যাওয়ার কদিন আগেই একটি গানের রিয়েলিটি শো’র মঞ্চ আলোকিত করেছিলেন এই গোল্ডেন বাপ্পি লাহিড়ী। নতুন প্রতিভার গান সেখানে তিনি শুনেছিলেন। নতুন প্রতিভাদের নতুন গান গাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছিলেন বাপ্পি লাহিড়ী। বাপ্পি দা চলে গেছেন, কিন্তু রেখে গেছেন অনেক টুকরো টুকরো স্মৃতিদের আর এই স্মৃতিদের পাথেয় করে নিয়ে যেতেই হবে নতুন প্রজন্মকে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here